1. jamalpurvoice2020@gmail.com : Editor : Zakiul Islam
  2. ullashtv@gmail.com : TheJamalpurVoice :
চরাঞ্চলের বালুচরের জমিতে ফসল উৎপাদন করে মহা খুশি কৃষকরা – Jamalpur Voice
সংবাদ :
জামালপুরে প্রকৌশলীকে পিটিয়ে দরপত্র ছিনতাই এর ঘটনায় অভিযোগ পত্র দাখিল বকশিগঞ্জে স্বামীর লিঙ্গ কর্তন স্ত্রী ও ভাগ্নে আটক দেওয়ানগঞ্জে ইউএনর নির্দেশে পল্লী বিদ্যুৎ এর দুই কর্মচারীকে বেঁধে রাখার অভিযোগ মেলান্দহে সড়ক দুর্ঘটনায় ব্র্যাক কর্মকর্তা নিহত অপসোনিন ফার্মা আয়োজিত বিশ্ব পরিবেশ দিবসে জামালপুর শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজে বৃক্ষ বিতরণ জামালপুরে নাদিম হত্যার সাথে জড়িতদের ফাঁসির দাবিতে প্রতিবাদ সমাবেশ জামালপুর জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ মুশফিকুর রহমান জামালপুর জেলার শ্রেষ্ঠ সার্কেল নির্বাচিত হয়েছেন সোহরাব হোসাইন ঈদুল আজহা উপলক্ষে ক্যাটল স্পেশাল ট্রেনে গরু যাচ্ছে ঢাকায় কামালখান হাট ফাজিল ( ডিগ্রি) মাদরাসায় আলিম পরীক্ষার্থীদের জন্য আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠিত

চরাঞ্চলের বালুচরের জমিতে ফসল উৎপাদন করে মহা খুশি কৃষকরা

  • Update Time : Sunday, January 14, 2024
  • 65 Time View

জামালপুর প্রতিনিধি:
জামালপুরের চরাঞ্চলের বালুচরের পতিত জমিতে বিভিন্ন জাতের অর্থকরী ফসল চাষ করেছেন কৃষকরা। কৃষি বিভাগের সার্বিক সহযোগিতা পতিত জমি ফেলে না রেখে কৃষকরা ফসল উৎপাদন করে ন্যায্যমূল্য পাওয়ায় মহা খুশি।
সরিষাবাড়ি উপজেলার চরাঞ্চলের শত শত একর জমি পতিত পড়ে থাকতো। এখন কৃষকরা পলিমিশ্রিত মাটির এসব জমিগুলো পতিত না রেখে বিভিন্ন জাতের অর্থকরী ফসল চাষ করেছেন। উপজেলার আওনা ইউনিয়নের কুলপাল, আওনা, ঘুইঞ্চা, ’লচরা, কুমারপাড়া, বাড়ইকান্দি গ্রামগুলো খরস্রোতা যমুনা নদীর অববাহিকায় পলিমিশ্রিত মাটিতে চাষ হয়েছে ভুট্টা, খেসারি কলাই, মাসকলাই, তিশি, ধনিয়া শস, বাদাম, মসুর ডালসহ বিভিন্ন জাতের অর্থকরী ফসল।
কুলপাল চরের কৃষক আব্দুল বারিক বলেন, এখন শীতের কারণে বাদামের গাছ তেমন বাড়ছে না। শীত শেষে পুরো ক্ষেত ছেয়ে যাবে বাদামের গাছে। গ্রামীণ যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়ন ও তথ্যপ্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন জাতের ফসল উৎপাদন করে ন্যায্যমূল্য পাচ্ছে এখানকার কৃষকরা।
কৃষক জামাল উদ্দিনসহ অনেকেই জানান, এক সময় এই চরের জমিতে তেমন ফসল হতো না। এখন ব্যাপক ফসল হয়েছে। সবাই এখন জমি চাষে আগ্রহ প্রকাশ করছে।
ইলিয়াস সরকার গত বছর ১২ বিঘা জমিতে ভুট্টা চাষ করে ভালো দাম পেয়েছিলেন। এ বছর তিনি ১৫ বিঘা জমিতে ভুট্টা চাষ করেছেন। তিনি জানান, গত বছর ১ হাজার ৩২০ টাকা দরে ভুট্টা বিক্রি করেছিলেন। প্রতি বিঘাতে তার খরচ হয়েছিলো ১১ হাজার টাকা। প্রতি বিঘাতে ভুট্টা হয় গড়ে ৪০ মণ। যা অন্য কোনো ফসল চাষ করে এতো লাভ করা সম্ভব নয়। তাই তিনি এ বছর আরো বেশি করে জমি বর্গা নিয়ে চাষ করেছেন।
জামালপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক জাকিয়া সুলতানা জানান, চরাঞ্চলে এখন আধুনিক প্রযুক্তিতে চাষাবাদ হয়েছে। কৃষক এখন বেশ লাভবান হয়েছে । কৃষি বিভাগ তাদের সার্বিক সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে। ফলে এখন আর আগের মতো কোনো জমি পতিত পড়ে থাকছে না। তাছাড়া প্রত্যেক উপজেলাতে মাঠ পর্যায়ের কৃষকদের সঠিক পরামর্শ দেয়া হয়েছে । ফলে কৃষক লোকসানের হাত থেকে রক্ষা পেয়ে লাভবান হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

সম্পাদক: জাকিউল ইসলাম কর্তৃক জামালপুর থেকে প্রকাশিত। ইমেইল: jamalpurvoice2020@gmail.com

জামালপুর ভয়েজ ডট কম: সকল স্বত্ব সংরক্ষিত
Customized BY NewsTheme