1. jamalpurvoice2020@gmail.com : Editor : Zakiul Islam
  2. ullashtv@gmail.com : TheJamalpurVoice :
সরিষাবাড়ীতে ট্রেনে আগুনের ঘটনায় হরতাল সমর্থকদের বিরুদ্ধে মামলা – Jamalpur Voice

সরিষাবাড়ীতে ট্রেনে আগুনের ঘটনায় হরতাল সমর্থকদের বিরুদ্ধে মামলা

  • Update Time : Sunday, November 19, 2023
  • 18 Time View

মোঃ রুহুল আমিন রাজু জামালপুর প্রতিনিধিঃ জামালপুরের সরিষাবাড়ী রেলওয়ে স্টেশনে আন্তঃনগর যমুনা এক্সপ্রেস ট্রেনের তিনটি বগিতে আগুনের ঘটনায় মামলা হয়েছে। রবিবার (১৯) সকালে সরিষাবাড়ী রেলওয়ে স্টেশনের সহকারী মাস্টার আব্দুস সালাম বাদি হয়ে জামালপুর জিআরপি থানায় হরতাল সমর্থকদের (অজ্ঞাত) বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন।

এরআগে শনিবার (১৮ নভেম্বর) দিবাগত রাত সোয়া ১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরপরই ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট, জিআরপি ও থানা পুলিশের যৌথ প্রচেষ্টায় দুই ঘণ্টা পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। আগুনে প্রায় এককোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ধারণা করা যাচ্ছে।

এদিকে যমুনা ট্রেনটি তারাকান্দি স্টেশন থেকে রাত ২টায় ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও সকাল ৬টায় পুড়ে যাওয়া বগি দুইটি রেখে তারাকান্দি স্টেশনে যায় এবং সরিষাবাড়ীতে ফিরে পুড়া বগিসহ ঢাকার দিকে ছাড়ে।

জামালপুর রেলওয়ে থানার (জিআরপি) অফিসার ইনচার্জ গোলজার হোসেন জানান, কে বা কারা ট্রেনে আগুন দিয়েছে প্রাথমিকভাবে তা বলা যাচ্ছে না, তবে হরতাল সমর্থনকারীরা নাশকতার উদ্দেশ্যে এ ঘটনা ঘটিয়েছে। এ ঘটনায় সরিষাবাড়ী রেলওয়ে স্টেশনের সহকারী মাস্টার আব্দুস সালাম বাদি হয়ে অজ্ঞাত নাশকতাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন।

বিষয়টি তদন্ত চলছে এবং দোষী ব্যক্তিরা সনাক্ত হলে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও তিনি জানান।

ঘটনা সম্পর্কে সরিষাবাড়ী রেলওয়ে স্টেশনের সহকারী মাস্টার আব্দুস সালাম জানান, ঢাকা থেকে তারাকান্দিগামী আন্তঃনগর যমুনা ট্রেন রাত ১.১০টায় সরিষাবাড়ী স্টেশনে থামে। কিছুক্ষণ পর ট্রেনটি তারাকান্দির উদ্দেশ্যে ছাড়ার সাথেসাথেই আগুন ধরে। ট্রেন স্টেশন থেকে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ মোড় পর্যন্ত গেলে ক, খ ও গ বগিতে দাউদাউ করে আগুন জ্বলে উঠে। এসময় অন্য বগির আতঙ্কিত যাত্রীরা শিকল টেনে ট্রেন থামায়।

এদিকে ট্রেনে আগুনের ঘটনায় চারজন নারী যাত্রী আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। আহতরা হলেন—উপজেলার আওনা ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামের জহির উদ্দিনের স্ত্রী মমতাজ বেগম (৫০), পোগলদিঘা ইউনিয়নের রুদ্র বয়ড়া গ্রামের আমিনুল ইসলামের স্ত্রী আশিকা সুলতানা (৩০), তারাকান্দি গ্রামের সোহেল মিয়ার স্ত্রী লাবনী আক্তার (২৪) ও ইয়ার মাহমুদের স্ত্রী জেলী বেগম (৫০)।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. ফাহমিদা জামান তিথি জানান, রাত ১.২০টার দিকে হাসপাতালে চারজন নারী আহত হয়ে এসেছিলেন। এরমধ‌্যে দুইজনকে ভর্তি ও দুইজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

সম্পাদক: জাকিউল ইসলাম কর্তৃক জামালপুর থেকে প্রকাশিত। ইমেইল: jamalpurvoice2020@gmail.com

জামালপুর ভয়েজ ডট কম: সকল স্বত্ব সংরক্ষিত
Customized BY NewsTheme